ফেনী

ভূমি অফিস নির্মাণ করছে সীমানা প্রাচীর, লাশ বের করার পথ নেই পরিবারগুলোর

ফেনীর ছাগলনাইয়া শুভপুর ইউনিয়নের জয়চাঁদপুর এলাকা ভূমি অফিসের পাশে প্রায় শত বছর যাবত পরিবারগুলোর বসবাস। সরকারী ওই অফিসের পাশ দিয়েই চলাচলের একমাত্র পথ। সেই পথটি এখন রুদ্ধ হতে চলেছে, ভূমি অফিস নির্মাণ করছে সীমানা প্রাচীর। মানুষ মরে গেলেও লাশের খাটিয়া কিংবা এম্বুলেন্স আসা যাওয়ার ব্যবস্থাও নেই।

এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে বুধবার (১০ মার্চ) । কুয়েত প্রবাসী মোশারফ হোসেনের অসুস্থ মাকে নিয়ে আসা এম্বুলেন্স বাড়িতে প্রবেশ করতে পারেনি। কোন রকমে তারা কাঁটার বেড়ার নিচ দিয়ে টেনে হিচড়ে বৃদ্ধ মা জাহানারা বেগমকে নেয়া হয় ঘরে।

এভাবেই নিত্য ভোগান্তি পোহাচ্ছে পরিবারগুলো, উপায়ান্তর না দেখে গ্রামের ৬৫ টি পরিবার ঘুরছে প্রশাসন ও জন প্রতিনিধিদের দ্বারে দ্বারে। সব চেষ্টা ব্যর্থ হয়ে বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারী) আসেন জেলা প্রশাসক মো: ওয়াহিদুজজামানের কাছে।

 

চলাচলের রাস্তা উন্মুক্ত রাখার দাবীতে ফেনী জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি, মানববন্ধন সবই করছেন। কিন্তু কোন উপায় বের হচ্ছেনা।

তারা বলছেন, একজন মানুষ মারা গেলে তার লাশ নেয়ার রাস্তাটাও তাদের নেই, কোন গর্ভবতী মহিলাকে ডাক্তারের কাছে নেওয়ার রাস্তাটাও তাদের থাকবেনা। রাস্তার অভাবে তাদের ধুঁকে ধঁকে মরতে হবে।

গ্রামবাসী বলেন, শুভপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের পশ্চিম ও উত্তর পাশে জয়চাঁদপুর গ্রামের ২নং ওয়ার্ডের প্রায় ১শ’ বছর ধরে ৬৫ পরিবারের ৩ শতাধিক মানুষের বসবাস। এলাকাবাসী মূল সড়কে উঠার জন্য চলাচলের ক্ষেত্রে শুভপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের কিছু জায়গার উপর দিয়ে গড়ে উঠা সড়ক দিয়ে যেতে হয়।

 

সম্প্রতি উপজেলা ভূমি অফিস সরকারী সম্পত্তির বে-দখল ও নিরাপত্তার স্বার্থে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করার উদ্যোগ নেন। সীমানা প্রাচীর ও তারকাঁটার বেড়া নির্মাণ হলে এলাকাবাসীর চলাচলের রাস্তা স্থায়ীভাবে বন্ধ হয়ে যাবে।

 

গ্রামবাসীরা আরও জানায়, চলাচলের বিকল্প রাস্তা না থাকায় এলাকাবাসীর মধ্যে চরম উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা দেখা দেয়। এর আগে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিকট তাদের চলাচলের রাস্তা উন্মুক্ত রাখার জন্য লিখিত আবেদন করা হয়েছিলো তাতে বরফ গলেনি। শেষ চেষ্টা হিসেবে তারা এসেছেন জেলা প্রশাসকের কাছে।

চলাচলের একমাত্র রাস্তাটি উন্মুক্ত রাখার দাবী জানিয়ে তারা বলেন, প্রায় ১শ বছর ধরে আমরা এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করে আসছি।

সম্পর্কিত

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এছাড়াও পডুন
Close
Back to top button