বাংলাদেশ

স্মার্টকার্ড (জাতীয় পরিচয়পত্র) ভুলে ভরা

ভুলে ভরা এনআইডি (জাতীয় পরিচয়পত্র) স্মার্টকার্ড। মৌলভীবাজারের প্রায় কার্ডেই জেলার বানান ভুল। আবার কারো মায়ের নাম, কারো আবার বাবার নাম ঠিক নেই। ভুল ছাপা হয়েছে নিজের নামও। সম্প্রতি শ্রীমঙ্গলে বিতরণ করা ভুলে ভরা স্মার্টকার্ড নিয়ে বেশ দুশ্চিন্তায় পড়েছেন নাগরিকরা। প্রবাসী অধ্যুষিত এ উপজেলার মানুষকে এমন কার্ড নিয়ে দেশ-বিদেশে বেশ বিড়ম্বনাতেই পড়তে হবে।
শ্রীমঙ্গল উপজেলার পূর্বাশা এলাকার ঝলক দেব রায়। স্মার্টকার্ড নিয়ে ছিল তার বেশ উৎসাহ। দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে সেই কার্ড হাতে পাওয়ার পর সেই আনন্দ বিলীন হয় হতাশায়। নিজের নামটাই যে ভুল এসেছে- ঝলক দেব রায়ের স্থলে লেখা ‘ঝলক দেবনাথ’। ক্ষোভ প্রকাশ করে ঝলক দেব রায় জানান, পুরাতন কার্ডে নাম ঠিক আছে কিন্তু নতুন স্মার্টকার্ডে কী করে ভুল এলো তা তিনি বুঝতে পারছেন না। তবে কিছুদিন আগে করোনা টিকা নিতে গিয়েও দেখেন তার নাম ঝলক দেব রায় থেকে ঝলক দেবনাথ হয়ে গেছে।
এমন অভিযোগ উপজেলার সর্বত্রই। নামের পাশপাশি কারো জন্মতারিখ ভুল। আবার কারো ঠিকানা ঠিক নেই। এ সমস্যা অবশ্য নতুন নয়। তবে এসব সমস্যায় জর্জরিত
ভোটাররা মনে করেছিলেন, অত্যাধুনিক স্মার্টকার্ড পাওয়ায় হয়তো এসব বিড়ম্বনা কিছুটা হলেও লাঘব হবে। কিন্তু সে আশায় গুড়েবালি। ভুলে ভরা স্মার্টকার্ড নিয়ে সাধারণ মানুষ পড়েছেন আরও বেশি বিপাকে। এমন ভুল তথ্য সম্বলিত জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে কোনোভাবেই নাগরিক সেবা পাওয়া সম্ভব নয় বলে মত দিয়েছেন সচেতন মহল। বিশেষ করে পাসপোর্ট তৈরি কিংবা ব্যাংকিং কার্যক্রমসহ অসংখ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হবেন তারা।
শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তপন জ্যোতি অসীম অবশ্য বলেন, ‘কিছু কিছু নাগরিকের স্মার্টকার্ড বা নামে ভুল এসেছে। যাদের নাম, বাবার নাম বা ঠিকানা ভুল হয়েছে তাদের চিন্তা করার কোনো কারণ নেই। স্মার্টকার্ডের ভুল সংশোধন করতে হলে নির্বাচন অফিসে এসে ফরম পূরণ করে জমা দিলেই সংশোধন হয়ে যাবে।’

সম্পর্কিত

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button