বাংলাদেশ

আজ থেকে শুরু হতে যাচ্ছে করোনার ভ্যাকসিন

সারা দেশে মোট ১ হাজার ৫টি হাসপাতালে টিকা দেওয়া হবে। ঢাকাসহ সারা দেশে রোববার করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হচ্ছে। রাজধানীর ৫০টি হাসপাতালের জন্য ২০৪টিসহ এবং সারা দেশে ২ হাজার ৪০০টি টিম এই টিকাদানে কাজ করবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। কোভিড–১৯–এর টিকা দেওয়া হবে যেসব হাসপাতালে, সেগুলোর মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটিতে ২৬টি, দক্ষিণ সিটিতে ১৯টিসহ মোট ৪৫টি হাসপাতালের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। তবে ঢাকার আরও পাঁচটি হাসপাতালে কোভিড-১৯-এর টিকা দেওয়া হবে বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে।
স্বাস্থ্য অধিদফতরের দেওয়া তথ্যনুযায়ী, সারা দেশে করোনা টিকা গ্রহণের লক্ষ্যে ৩ লাখ ২৮ হাজারের বেশি মানুষ ‘সুরক্ষা’ ওয়েবসাইটের মাধ্যমে নিবন্ধন করেছেন। নিবন্ধনকারীরা প্রতিটি টিকাদান কেন্দ্রে সকাল ৮ টা থেকে দুপুর ২.৩০ মিনিট পর্যন্ত হাসপাতালের বহির্বিভাগে টিকা নিতে পারবেন।
স্বাস্থ্য অধিদফতরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেমের পরিচালক মিজানুর রহমান বলেন, টিকা গ্রহণে নিবন্ধনকারীদের তালিকা প্রতিটা টিকাদান কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। এদিকে রোববার (৭ ফেব্রুয়ারি) যাঁরা টিকা নেবেন, তাঁদের কাছে আজ শনিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলের মধ্যে মুঠোফোনে খুদে বার্তা পৌঁছে যাবে। গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ঢাকা উত্তর সিটি কেন্দ্র সমূহঃ

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের টিকাদান কেন্দ্রগুলোর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ সংসদ সচিবালয় ক্লিনিক, মিরপুরের ঢাকা ডেন্টাল কলেজ, শ্যামলীতে ঢাকা শিশু হাসপাতাল, মহাখালীতে সংক্রামক রোগ হাসপাতাল, উত্তরার কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতাল, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, মিরপুরের লালকুঠি হাসপাতাল, মোহাম্মদপুর ফার্টিলিটি সার্ভিসেস অ্যান্ড ট্রেনিং সেন্টার, জাতীয় বাতজ্বরজনিত হৃদরোগ প্রতিরোধ কেন্দ্র, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, জাতীয় ক্যানসার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, জাতীয় বক্ষব্যাধি ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, জাতীয় নাক কান ও গলা ইনস্টিটিউট, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব কিডনি ডিজিজেস অ্যান্ড ইউরোলজি, জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস ও হাসপাতাল, জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (পঙ্গু হাসপাতাল), শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, শ্যামলীর ২৫০ শয্যার টিবি হাসপাতাল।
এ ছাড়া ঢাকা উত্তর সিটির পাঁচটি নগর মাতৃসদন কেন্দ্র মগবাজারের নয়াটোলা, মোহাম্মদপুরের বাঁশবাড়ি, মিরপুর মাজার রোডের নেকি বাড়ির টেক, মিরপুরের বর্ধিত পল্লবী এলাকা ও উত্তরা ৬ নম্বর সেক্টরের মাতৃসদনে করোনার টিকা দেওয়া হবে।
ঢাকা উত্তর সিটির জনসংযোগ শাখা থেকে জানানো হয়, রোববার সকাল ১০টায় মোহাম্মদপুর ফার্টিলিটি সেন্টারে টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হবে। সংস্থার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম রেজা এর উদ্বোধন করবেন এবং দক্ষিণ সিটির মেয়র ফজলে নূর তাপস সকাল ১০টায় পুরান ঢাকার নয়াবাজার এলাকায় অবস্থিত ঢাকা মহানগর জেনারেল হাসপাতালে টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হবে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কেন্দ্র সমূহঃ
ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) টিকাদান কেন্দ্রগুলো হলো শাহবাগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ সচিবালয় ক্লিনিক, ফুলবাড়িয়ায় সরকারি কর্মজীবী হাসপাতাল, আজিমপুর মা ও শিশু হাসপাতাল, মাতুয়াইল শিশু মাতৃসদন হাসপাতাল, রাজারবাগে কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতাল, কামরাঙ্গীরচরে ৩১ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, পুরান ঢাকায় স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট, পিলখানার বিজিবি হাসপাতাল, নয়াবাজারে ঢাকা মহানগর জেনারেল হাসপাতাল, লালবাগে ঢাকা মহানগর শিশু হাসপাতাল।
এ ছাড়া দক্ষিণ সিটির পাঁচটি নগর মাতৃসদন কেন্দ্র ধলপুরে নগর মাতৃসদন, বংশালের কসাইটুলী নগর মাতৃসদন, হাজারীবাগে ঢাকা আহ্‌ছানিয়া মিশন নগর মাতৃসদন, উত্তর মুগদা মাতৃসদন ও খিলগাঁওয়ের তিলপাপাড়া মাতৃসদনে টিকা দেওয়া হবে।
-এস. আক্তার

সম্পর্কিত

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button